বৃন্দাবন দাস ও দীপু হাজরা’র ‘লাকি সেভেন’

 

অনলাইন ডেস্ক
প্যাসিফিকনিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বৃন্দাবন দাস একজন নাট্যকার, ভালো অভিনেতাও বটে। এদিকে বর্তমানের আলোচিত ও জনপ্রিয় পরিচালক দীপু হাজরা খুব অল্প সময়ের মধ্যে ভালো ভালো নাটক নির্মাণ করে দর্শকদের হৃদয় কুড়িয়ে নিয়েছেন সহজেই। বৃন্দাবন দাসের লেখা ‘শাপলা স্টুডিও’ নামের নাটকটি ২০১০ সালে ঈদের অনুষ্ঠানমালায় একুশে টেলিভিশনে প্রচারিত হয়। এটি তাদের প্রথম নাটক। সে বছর নাটকটি ব্যাপক দর্শক সাড়া পেয়েছে। খুব কম দর্শকই আছেন টেলিভিশন কিংবা ইউটিউবে নাটকটি দেখেননি। বলা চলে ২০১০ সালে প্রচারিত সকল সেরা নাটকের মধ্যে ‘শাপলা স্টুডিও’ একটি। আর এ কাজের মধ্য দিয়ে বৃন্দাবন দাস ও দীপু হাজরার মধ্যে সখ্য গড়ে ওঠে। পরবর্তীতে তাঁর লেখা ‘লাভ রশিদ’, ‘গান মজিদ’, ‘সেতু-বন্ধন’ ‘মফিজ বিএসসি’ এবং ‘উসিলা’ নির্মাণ করেন দীপু হাজরা। সর্বশেষ এই সপ্তাহে শুটিং শেষ করেছেন তাদের সপ্তম নাটক ‘হ্যাপি ফেমিলি’।

এ প্রসঙ্গে বৃন্দাবন দাস বলেন, কাজের মধ্য দিয়ে দীপুর সাথে আমার জানাশোনা প্রায় ৭ বছর।

নাটকও নির্মাণ হলো ৭টি। বলা যায় শেষ এ নাটকটি আমাদের জন্য ‘লাকী সেভেন’ নাটক। ও কাজে বেশ দক্ষ। আর ‘হেপি ফেমিলি’ নাটকটির গল্পও অন্য নাটকগুলোর থেকে আলাদা। তাই আশাকরি দর্শকরা ভিন্ন কিছুর স্বাদ পাবেন।
নির্মাতা দীপু হাজরা বলেন, বৃন্দাবন দাদার লেখনির ব্যাপারে বলার সাহস আমার নাই। শুধু এইটুকু বলতে পারি তিনি অনেক ভালো মনের একজন মানুষ। অনেক বড় মনের মানুষ যা তার সাথে কথা না বললে বোঝা যাবে না। তার প্রতিটি নাটকের গল্পই আলাদা আলাদা ভাবে দৃশ্যমান। “হেপি ফেমিলি”ও অনেক মজার একটি নাটক।

নাটকটিতে অভিনয় করেছেন, চঞ্চল চৌধুরী, ফারহানা মিলি, ফজলুর রহমান বাবু, শাহানাজ খুশী, মাসুদ রানা মিঠু। সবচেয়ে মজার বিষয় হলো এই প্রথম বৃন্দাবন দাস দাদা ও শাহানাজ খুশী আপার জমজ দুই সন্তান দিব্য ও শম্য প্রথমবারের মতো এই নাটকে একই ফ্রেমে বন্দি হয়েছে। ওরাও দুর্দান্ত অভিনয় করেছে। তাই আশাকরা যায় অনেক কিছুর সমন্বয়ে আমাদের সপ্তম নাটক ‘হেপি ফেমিলি’ দর্শকরা বেশ ভালোভাবেই উপভোগ করবেন। ‘হেপি ফেমিলি’ নাটকটি ঈদুল আজহায় গাজী টিভিতে প্রচারিত হবে।