ব্যবসায়ীদের তোপের মুখে অর্থমন্ত্রী

 

অনলাইন ডেস্ক
প্যাসিফিকনিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ভ্যাট নিয়ে ব্যবসাীদের তোপের মুখে পড়লেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তোপে পড়ে অস্বস্তি ও ক্ষোভে চুপ হয়ে যান সরকারের এ প্রভাবশালী মন্ত্রী।

রোববার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ও এফবিসিসিআই আয়োজিত জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পরামর্শক কমিটির ৩৮তম সভায় এ ঘটনা ঘটে।

সভায় এফবিসিসিআইয়ের একজন সহ-সভাপতি, ভ্যাট আইনে ১৫ শতাংশ ভ্যাটের বিরোধিতা করে তা কমানোর পাশাপাশি প্যাকেজ ভ্যাট চালুর দাবি জানান। অন্যথায়, ব্যবসায়ীরা শিক্ষার্থীদের মতো আন্দোলনে যাবেন বলে হুমকি দেন।
এসময় ওই ব্যবসায়ী নেতা বলেন, “আমরা ছাত্রদের মতো আন্দোলন করতে চাই না। এর আগে আন্দোলন করেছি। তখন আশ্বাস দেয়া হয়। কিন্তু কোনো সুরাহা হয়নি।”

তিনি বলেন, “এফবিসিসিআই ১৮ বার ভ্যাট নিয়ে সভা করেছে। কিন্তু কোনো কিছুই হয়নি। আমাদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়নি। এমন পরিস্থিতিতে আমাদের আন্দোলন করতে হবে।”

এক পর্যায়ে ওই ব্যবসায়িকে বক্তব্য শেষ করতে না দিয়েই ফ্লোর নেন মুহিত। বলেন, “একলাখ ছোট দোকান আছে। কিন্তু ভ্যাট পরিশোধ করেন মাত্র ৩২ হাজার ব্যবসায়ি। বাকিরা কি করেন?”

তিনি বলেন, “আপনারা আন্দোলনে গেলে সরকার সেটি দমন করবে। আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে আন্দোলন দমন করব। এতেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন আলোচনা সভায় উপস্থিত ব্যবসায়িরা। তারা অনেকে বলতে থাকেন, “আমরা আন্দোলনে যাব। আপনি পারলে দমন করেন। আর দমন যদি করতে চান, তবে আমাদের এখান থেকে বের করে দেন। আমাদের ডাকা হয়েছে কেন।”

এসময় অনেক ব্যবসায়ি দাড়িয়ে অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যের বিরোধিতা করতে থাকেন।

এক পর্যায়ে নিজে থেকে থেমে যান মুহিত। সভায় ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতিসহ শীর্ষ নেতারা থাকলেও তাৎক্ষণিকভাবে কেউ অপ্রীতিকর পরিস্থিতিতে ভূমিকা নেননি। তখন এফবিসিসিআই সহ-সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন ব্যবসায়িদের শান্ত হতে বলেন।

এরপর এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, “যে ফোরামে আলোচনা হচ্ছে, সেখানে আন্দোলনের হুমকি দেয়ার জায়গা নয়। এখানে কথা বলার কিছু ভাষা আছে। আমাদের সঠিক ভাষায় কথা বলতে হবে।”

অর্থমন্ত্রী মুহিত এর আগেও ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন মহল নিয়ে নানা বিশেষ ভাষা ব্যবহার করেছেন। তবে তিনি বাইরে থেকে ওইসব কথার জন্য সমালোচনায় পড়লেও সরাসরি তোপের মুখে পড়ার ঘটনা নেই বললেই চল।